TrickBlogBD.com

Gain and Give knowledge

Sponsored

News

চকবাজার ট্রাজেডি: শোকের দিনে নতুন শোক

চকবাজার ট্রাজেডিঃ ২০ ফেব্রুয়ারি রাত সাড়ে ১০ টার দিকে আগুন লাগে পুরান ঢাকার চকবাজারে। পুরান ঢাকার চকবাজারের চুড়িহাট্টা এলাকায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ৪৫ জনের লাশ শনাক্ত করা হয়েছে। প্রথম আলো

চকবাজার ট্রাজেডি
চকবাজার ট্রাজেডি

চকবাজারে যেভাবে আগুন লাগে

২১ শে ফেব্রুয়ারি এক শোক দিবসে জাতির জন্য হাজির হলো নতুন শোক। ২০ ফেব্রুয়ারি রাত প্রায় ১০ টার দিকে চকবাজারের চুড়িহাট্টা এলাকার রাস্তায় এক বিকট শব্দ শুনা যায়।

Advertisement

বিকট শব্দের পর রাস্তায় দেখা যায় আগুন জ্বলছে আর মানুষ আহত আর্তনাদ করছে। এদময় কয়েকটি গাড়িতে আগুন লেগে যায়।

কয়েক মিনিটের মধ্যে সেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন ভবন, রাস্তার আশেপাশের হোটেল ও দোকানগুলোতে।

যেই জায়গায় আগুন লেগেছিল
যেই জায়গায় আগুন লেগেছিল

মূলত পিকাপ ভ্যানে থাকা গ্যাস সিলিন্ডারের বিস্ফোরণের কারণেই অগ্নিকান্ড ঘটে। হঠাৎ অনাকাঙ্ক্ষিত এই অগ্নিকাণ্ডে অনেকেরই অসহায়ের মত দেখা ছাড়া কিছুই করার ছিলনা।

কিছুক্ষণের মধ্যেই আগুনের তাপে হোটেলগুলোতে থাকা সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হওয়া শুরু হয়। আর আগুনের মাত্রা বিশ্বযুদ্ধের মত ছড়িয়ে পড়ে সমস্ত এলাকায়।

Advertisement

চকবাজারের আগুন নিভাতে ফায়ার সার্ভিসের ভূমিকা

চকবাজার অগ্নিকাণ্ড ঘটার আধাঘন্টার মধ্যেই ফায়ার সার্ভিস সেখানে পৌছে যায়। কিন্তু রাস্তা সরু হওয়ায় ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ঘটনাস্থলে প্রবেশ করয়ে বেশ সমস্যা হয়।

চকবাজার ট্রাজেডি: ফায়ার সার্ভিসের সাহসিকতা
চকবাজার ট্রাজেডি: ফায়ার সার্ভিসের সাহসিকতা

তারা তাদের সাহসিকতা ও দক্ষতায় ১২ ঘন্টার মধ্যে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। তারা এসময় প্রায় ৭০ টি মৃতদেহ ও অর্ধশতাধিক আহত ব্যক্তিকে উদ্ধার করে।

কেন বার বার এই অগ্নিকান্ড

গত নয় বছর আগেও নিমতলীতে এক ভয়াবহ অগ্নিকান্ড ঘটেছিল। তখন রাসায়নিক কারখানাগুলো স্থানান্তরিত করার কথা বলা হলেও এখনো সেটা করা হয়নি।

ঐ ভয়াবহ ঘটনায় শতাধিক মানুষ প্রাণ হারিয়েছিল। এছাড়াও বিপুল পরিমাণ সম্পদের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল। তাই চকবাজারবাসী এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি মেনে নিতে পারছেনা।

বাংলাদেশে অগ্নিকাণ্ডে প্রাণহানির তালিকা
বাংলাদেশে অগ্নিকাণ্ডে প্রাণহানির তালিকা

মূলত চকবাজার এলাকায় প্রচুর অবৈধ শিল্প ও রাসায়নিক কারখানা অবস্থিত। নিমতলীর অগ্নিকান্ডের পর এসব সরিয়ে ফেলার কথা থাকলেও নানা কারণে সেটা আর সম্ভব হয়নি।

কিন্তু সে ব্যর্থতার দায় সরকার নিতে রাজি নয়।

Advertisements

নিমতলীর ঘটনার সময় আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন সরকারে শিল্প মন্ত্রী ছিলেন দিলীপ বড়ুয়া। সে সময় তিনি অবৈধ রাসায়নিক ব্যবসার বিরুদ্ধে অভিযান চালানো এবং এসব স্থানান্তরের কথা বললেও বাস্তবায়ন করতে পারেন নি। কিন্তু তিনি ব্যর্থতার দায় নিতে রাজি নন।

“তখন তো অভিযান হয়েছিল। তারা নীতিগতভাবে ঠিক করেছিল, তারা চলে যাবে। আমরা জায়গা ঠিকে করে দেবো। তারা তাদের অর্থায়নে সেটা তৈরি করবে। আমরা কেরানীগঞ্জে সে রকম জায়গাও ঠিক করেছিলাম । এর আনুষঙ্গিক বিষয়গুলো করতে গিয়ে আমার মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। এরপর যারা কর্মকর্তা ছিলেন, তারা আর তা ফলোআপ করেননি। ফলে হয়নি।”

নতুন দূর্ঘটনার আশংকা

অগ্নিকান্ডের ফলে অনেক বহুতল ভবন এখন ঝুকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। যেকোন মূহুর্তে সেগুলো ভেঙ্গে অড়ে নতুন সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে।

সেক্ষেত্রে আরো মানুষের প্রাণহানির আশংকা থেকেই যাচ্ছে। যেই মানুষগুলো মারা গেছে তাদের আমরা আর ফিরে পাবনা। কিন্তু যারা এখনো বেঁচে আছে তাদের জন্য এখনই আমাদের কিছু করতে হবে।

অগ্নিকাণ্ডের ফলে ঝুকিপূর্ণ ভবন
অগ্নিকাণ্ডের ফলে ঝুকিপূর্ণ ভবন

চকবাজারের ঘটনায় এ পর্যন্ত অন্তত ৭৮ জন মারা গেছেন। আহতের পরিমাণ শতাধিক। এর মধ্যে নোয়াখালীর মানুষের সংখ্যাই বেশি।

খবর ও ছবিঃ বিবিসি বাংলা,নয়া দিগন্তপ্রথম আলো

Advertisement

এই পোস্ট সম্পর্কে আপনার কোনো মন্তব্য, পরামর্শ বা অভিযোগ থাকলে নিছে কমেন্ট করুন। আমরা প্রত্যেকটা কমেন্টের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করি।

সকল আপডেট সবার আগে পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন ও টুইটারে ফলো করুন

ট্রিক ব্লগ বিডি

1 COMMENTS

  1. খুবই দুঃক্ষজনক ঘটনা। ক্ষতিগ্রস্থদের সরকারের পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত সাহায্য অসহযোগিতা করা উচিত।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Admin Habibur Rahman is a School teacher. He is a mathematics students at Honners.