TrickBlogBD.com

Gain and Give knowledge

Health Tips Product review

পানিশূন্যতার ফলে কি কি হতে পারে? জেনে নিন

Advertisements

মানবদেহের রক্তের পরিমাণ প্রায় ৫-৬ লিটার। রক্তের উপাদানসমূহের মধ্যে শতকরা ৯২ ভাগ অংশই হলো পানি। দেহের স্বাভাবিক বিপাকীয় ক্রিয়ার জন্য সার্বক্ষণিক প্রয়োজন পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি ও অক্সিজেন। পর্যাপ্ত পানি পান না করলে দেহের পানিশূণ্যতা সৃষ্টি হয়।

পানিশূন্যতার ফলে কি কি হতে পারে?
বিশুদ্ধ পানি পান করুন

যে সকল কারণে দ্রুত পানিশূণ্যতা সৃষ্টি হতে পারে

►অতিরিক্ত ঘাম হওয়া।
►বমি হওয়া।
►বহুমূত্র রোগের কারণে বেশি বেশি প্রশ্রাব হওয়া।
►ডায়রিয়া হওয়া।

Advertisements

যেসকল কারনে বেশি পানি পান করা প্রয়োজন হয়

►তেল সমৃদ্ধ / তেলে ভাজা খাবার খাওয়া হলে।
►পর্যাপ্ত সংখ্যকবার ওজু ও গোছল করা না হলে।
►অতিরিক্ত উষ্ণ বা ঠান্ডা আবহাওয়ায় থাকলে।
►স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় পরিশ্রম বেশি হলে।

পানিশূন্যতা সৃষ্টি হলে শরীরের প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রেই বিরূপ প্রভাব সৃষ্টি হয়। যেমনঃ রক্তের ঘনত্ব বেড়ে যায়। ফলে ফুসফুস ও কিডনীতে রক্ত পরিশ্রাবন বাঁধাগ্রস্থ হয়।

কিডনীর পরিশ্রাবনের হার (GFR: Glomerular filtration rate) কমে যায় এবং ফুসফুসে অতিরিক্ত অক্সিজেন প্রয়োজন হয়। অতিরিক্ত অক্সিজেন নিতে গিয়ে মানুষ শ্বাসকষ্ট অনুভব করে।

এছাড়া পানিশূন্যতার ফলে রক্তনালীগুলোর সংকোচন – প্রসারন ক্ষমতা (Elasticity) হ্রাস পাওয়ায় হৃদপিন্ড থেকে সমগ্রদেহে পর্যাপ্ত পরিমান রক্ত সঞ্চালনেও বাঁধা সৃষ্টি হয়; রক্তনালীগুলোতে উচ্চ রক্তচাপ (High Blood Pressure) সৃষ্টি হয় ।

ফলে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গসমূহে পর্যাপ্ত রক্ত সরবরাহ হয় না। কখনও কখনও হৃদযন্ত্রের ক্রিয়াও বাধাগ্রস্থ হতে পারে এবং কিডনীতে পাথর হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়।

পানিশূন্যতার লক্ষণ

►পিপাসা বৃদ্ধি।
►মুখমন্ডল, ত্বক ও চোখ শুষ্ক হওয়া।
►হাত, পায়ের তালু, কান ও চোখ উষ্ণ অনুভূত হওয়া।
►প্রশ্রাবের ঘনত্ব বেড়ে যাওয়া এবং প্রশ্রাবে জ্বালা- পোড়া হওয়া।
►প্রশ্রাব ও ঘামের পরিমান হ্রাস পাওয়া।
►মাথা ব্যাথা হওয়া ও মাথা ঝিম ঝিম করা।
►শরীর ক্লান্ত হয়ে যাওয়া।

স্বাস্থ্য রক্ষার জন্য পানিশূন্যতা প্রতিরোধে পর্যাপ্ত পানি পান করাই একমাত্র উপায়। নিয়মিত যে সময় গুলোতে পানি পান করতে হবে-

►খাওয়া, ঘুমানো, শরীর চর্চার পূর্বে।
►প্রস্রাব হওয়া, ঘেমে যাওয়া বা বমি হওয়ার পর।
►তীব্র শীত বা উষ্ণ আবহাওয়ায় অবস্থান করলে কিছুক্ষন পর পর।

আরো পড়ুন…….

এখন ভাবনার বিষয় হলো – আমার পান করার পানি নিরাপদ কিনা !!!
১০০% নিরাপদ “Drinking Water ও Kitchen Water” Solution এর জন্য আস্থা রাখুন USA technology – Reverse Osmosis (RO) এর উপর।

Advertisements

এই প্রযুক্তিটি USA এর NSF, ANSI এবং EPA কতৃক স্বীকৃত, ISO 9001: 2008 সনদপ্রাপ্ত এবং WHO কর্তৃক সমাদৃত।

RO water purifier
RO water purifier

RO Technology সমৃদ্ধ RO Water purifier সম্পূর্ন অটোমেটিক এবং ঘরের পানির লাইনে সরাসরি ব্যবহার উপযোগী। ফলে পানি ফুটানো ও ঢালার ঝামেলা থাকে না। তাই আর দেরী না করে পারিবারের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য Quality যাচাই করে সংগ্রহ করুন সবচেয়ে ভালো মানের RO Water purifier.

Spread the love
Advertisements

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *