পড়ালেখা করার ৫ টি কার্যকরী নিয়ম | ১০০% Working

পড়ালেখা করার নিয়ম

আমরা অনেকেই পড়ালেখা নিয়ে অনেক দুশ্চিন্তা করি। কীভাবে পড়বো? কি করব? এগুলা নিয়ে আমরা সারাক্ষণ দুশ্চিন্তায় থাকি। অনেক পড়েও ফলাফল আমাদের খারাপ হয়। আজ আমরা সংক্ষেপা পড়ালেখা করার নিয়ম জানবো।

অবশ্য বেশি পড়া মানেই যে ভালো পড়া এটা ঠিক নয়। বেশি পড়লে পড়লে ভালো ফল করা যাবে এটা ভূল ধারনা।

পড়া আসলে বুঝে পড়াটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ। নিচে সঠিক উপায়ে পড়ার কিছু কৌশল তুলে ধরা হলো।

ভালো পড়ালেখা করার নিয়ম
ভালো পড়ালেখা করার নিয়ম

এক নাগাড়ে বেশিক্ষণ না পড়া

আমরা অনেকেই দেখা যায় একটানা অনেক্ষণ পড়ি। এটা ঠিক নয়। এক নাগাড়ে অনেক্ষণ পড়লে আসলে কাজের কাজ কিছুই হয়না।

বিজ্ঞানীদের মতে, মস্তিষ্কের তথ্য ধারণ ক্ষমতা ২০-২৫ পর হ্রাস পেতে থাকে। তাই একটানা বই নিয়ে পড়ে থাকার অভ্যাস আজ থেকেই ছেড়ে দিতে হবে।

পড়ার সময়ে ২০-২৫ মিনিট পরপর বিরতি ৫-১০ মিনিট নিতে হবে।

বিরতির সময় যেকোন কিছু করে সতেজ হয়ে আবার পড়া শুরু কর। দেখবে অনেক দ্রুত পড়া মাথায় ঢুকবে। এটা ভালো পড়ালেখার নিয়ম।

বিরতির সময় হাঁটাহাঁটি করা,গান শুনা, ফেসবুকিং করা ইত্যাদি করয়ে পার।

মুখস্থ না করে বুঝে পড়া

আমাদের দেশের বেশিরভাগ শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন বিষয় না বুঝেই মুখস্থ করে। এমন অভ্যাস আজ থেকেই বাদ দাও।

না বুঝে পড়ে কোন লাভ নাই। কোন কিছু বুঝলেই সেটাকে কাজে লাগানো যায়। না বুঝলে কখনোই তা সম্ভব হয়না।

যেই পড়া কোন কাজে লাগেনা সেই মূল্য কী? তাই মুখস্থ না করে বুঝে পড়ার চেষ্টা করবে।

কিছু না বুঝলে শিক্ষকদের জিজ্ঞেস করে বুঝে নিবে। অথবা বড় ভাই বোনদের কাছ থেকেও বুঝে নিতে পার। এটা ভালো পড়ালেখার আরেকটা নিয়ম।

পাঠ্য বিষয়টি গুগলে বা ইউটিউবে সার্চ করে দেখে নিতে পার। জ্ঞান অনেক বাড়বে।

গণিত সম্পর্কে কিছু জানার আগ্রহ থাকলে ইউটিউবে যাও। সেখানে চমক হাসানের ভিডিওগুলো দেখ। গণিতের ভয় অনেক কমে যাবে।

Sponsored by TrickBlogBD

ট্রিক ব্লগ বিডিতে বড় ধরণের পরিবর্তন করা হয়েছে। কোনো  প্রকার সমস্যায় পড়লে আমাদের ফেসবুক পেজে ম্যাসেজ করুন।

প্রতিদিনের পড়া প্রতিদিন শেষ কর

শিক্ষক হয়তো আমাদের কোন পড়া দিয়েছে। অথবা আমাদের কোন পাঠ পড়া দরকার। তখন আমরা কী করি? “আজকে থাক, কালকে পড়ব। আগামীকাল আসলেও একি কয়হা বলি। পরে পড়বো”। পরে পড়বো পড়ব করে আর পড়া হয়ে ওঠে না।

তাই এই পড়াটা নিয়ে পরীক্ষা পর্যন্ত আমাদের দুশ্চিন্তা থেকেই যায়।

তাই প্রতিদিনের পড়া প্রতিদিনই শেষ করা উচিত। পড়া বাকি রাখা যাবেনা। এটা ভালো পড়ালেখার আরেকটি নিয়ম।

অন্যকে শেখাও

যতটুকু নিজে পড়ে শেখা যায়, তার ১০ গুণ অন্যকে পড়িয়ে শিখা যায়। এটা আমার জীবনের বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে বলছি।

তাই নিজে শিখার পাশাপাশি অন্যকে শিখাও। এজন্য টিউশনি করা যেতে পারে। এটাও ভালো পড়ার নিয়ম।

অনেক কিছু লিখার ছিল। কিন্তু সময় নাই। রাত প্রায় দুইটা বাজে। সকাল ৮ টায় কাজে যেতে হবে।

তাই ইচ্ছে থাকা সত্বেও লিখতে পারছিনা। এজন্য দুঃখিত। ভবিষ্যতে এই বিষয়ে বিস্তারিত লেখার চেষ্টা করব।

পড়ার সময় উপরের বিষয় গুলো অবশ্যই মেনে চলার চেষ্টা করবে। আমার লেখায় কোন ভুল হলে ক্ষমা করবেন। আজকের জন্য বিদায়।

Note: কোন ভূল থাকলে কমেন্ট করে জানাবেন।

আরো আর্টিকেল পড়ুন…..

সার্চ কী ওয়ার্ডঃ পড়ার কৌশল, পড়া মনে রাখার কৌশল, সহজে পড়া শিখার কৌশল

2 thoughts on “পড়ালেখা করার ৫ টি কার্যকরী নিয়ম | ১০০% Working”

  1. ধন্যবাদ অনেক ভালো লাগলো আপনার লেখাটি।সত্যই অনেক উপকারে আসবে টিপসটি পড়ালেখার প্রতি মনোযোগ বৃদ্ধিতে। পড়ালেখা বিষয়ক এই সাইটটি ঘুরে দেখবে আশা করি অনেক কিছু শিখতে পারবেন এবং জানতে পারবেন। জ্ঞানবিতান.কম

    Reply

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.