এক সিম থেকে অন্য সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম

অনেক সময় আমরা এক সিম থেকে অন্য সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে চাই। কিন্তু কিভাবে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করা যায় সেই নিয়মকানুন না জানার কারণে সেটি আর সম্ভব হয়না। আজকে আমরা বাংলাদেশের সকল সিমের ব্যালেন্স ট্রান্সফার সম্পর্কে আপনাদের জানানোর চেষ্টা করবো। এই আর্টিকেলটি পড়লে আপনি জিপি, রবি, এয়ারটেল, বাংলালিংক ও টেলিটক সিমের ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবেন। তাই মনোযোগ দিয়ে সম্পূর্ণ লেখাটি পড়ুন।

এক সিম থেকে অন্য সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম
এক সিম থেকে অন্য সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার

মোবাইল ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম

একেক সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম একেক রকম। তাই আমরা প্রত্যেকটি সিমের ব্যালেন্স ট্রান্সফারের নিয়ম কানুনগুলো আলাদা আলাদা করে দিলাম। কোন কিছু বুঝতে সমস্যা হলে কমেন্ট করে জানাবেন।

জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার

ধাপ-১ঃ গ্রামীণফোন সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার জন্য প্রথমে রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে। এজন্য যেই নম্বর থেকে টাকা পাঠাবেন সেই সিমটি থেকে ডায়াল করুন *121*1500#। তারপর রেজিস্ট্রেশন করার জন্য 1 নম্বর অপশন (1 Registration) সিলেক্ট করুন অর্থাৎ 1 লিখে Send করুন।

অথবা সরাসরি রেজিষ্ট্রেশন অপশনটি সিলেক্ট করতে ডায়াল করতে পারেন *121*1500*1#। একটি কনফার্মেশন ম্যাসেজের মাধ্যমে ৬ ডিজিটের একটি পিন কোডসহ রেজিষ্ট্রেশন কনফার্মের একটা ম্যাসেজ পাবেন।

ধাপ-২ঃ রেজিস্ট্রেশন শেষ হওয়ার পর আবারো জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার কোড *121*1500# ডায়াল করুন। অন্য সিমে টাকা পাঠানোর জন্য 2 নম্বর অপশন (2 Transfer Balance) এর জন্য 2 লিখে send করুন। অথবা সরাসরি অপশনটি সিলেক্ট করতে ডায়াল করতে পারেন *121*1500*2#

ধাপ-৩ঃ এ পর্যায়ে যেই জিপি নম্বরে টাকা পাঠাবেন সেই নম্বরটি লিখে send বাটনে ক্লিক করুন।

ধাপ-৪ঃ কত টাকা পাঠাতে চান সেই পরিমাণটি লিখে send বাটনে ক্লিক করুন। মনে রাখবেন, আপনি সর্বনিম্ন 10 টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ 100 টাকা পর্যন্ত পাঠাতে পারবেন। 100 টাকার বেশি একবারে পাঠাতে পারবেন না।

ধাপ-৫ঃ এ পর্যায়ে রেজিষ্ট্রেশনের সময় sms এ যেই পিন নম্বরটি পেয়েছেন সেই পিন কোডটি লিখে send করুন।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে সফলভাবে আপনার ব্যালেন্স ট্রান্সফার হয়ে যাবে। আর আপনার ২ টি নম্বরেই (যে নম্বর থেকে পাঠাবেন ও যে নম্বরে পাঠাবেন) ম্যাসেজের মাধ্যমে কনফার্ম করা হবে।

জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার কোড

জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার কোডঃ *121*1500#

শর্ত ও লিমিট

  • ৬ মাসের অধিক সময় জিপি সিম ব্যবহার করতে হবে অথবা একসাথে ৩০০ টাকা রিচার্জ করলে আপনি ব্যালেন্স ট্রান্সফার সুবিধা পাবেন।
  • কেবলমাত্র প্রিপ্রেইড গ্রাহকরাই ট্রান্সফার সুবিধা পাবেন। তারা যেকোন জিপি নম্বরেই ব্যালেন্স পাঠাতে পারবেন।
  • ব্যালেন্স ট্রান্সফারের ক্ষেত্রে কোনো চার্জ প্রযোজ্য হবে না।
  • ১০ থেকে ১০০ টাকা একবারে সেন্ড করতে পারবেন।
  • মাসে সর্বোচ্চ ১০ টি ট্রান্সফার করতে পারবেন।
  • ব্যালেন্স ট্রান্সফার সম্পূর্ণ ফ্রি

জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার পিন কোড ভুলে গেছেন?

ব্যালেন্স ট্রান্সফার পিন ভুলে গেলে আপনি আর এক সিম থেকে অন্য সিমে টাকা পাঠাতে পারবেন না। তাই বুঝতেই পারছেন এটি একটি বড় সমস্যা। এই সমস্যার সহজ একটি সমাধান হলো জিপি কাস্টমার কেয়ার 121 এ কল করুন। তারা আপনাকে যেই নির্দেশনা দিবেন সেই অনুযায়ী কাজ করুন। তাহলে আপনি পুনরায় একটি পিন কোড সেট করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে যার নামে সিমটি রেজিস্ট্রেশন করা তার আইডি কার্ডের নম্বরটি কাস্টমার কেয়ার থেকে জানতে চাইতে পারে। তারা আপনার আইডেন্টিটি কনফার্ম হলে আপনাকে বর্তমান পিন কোডটি sms করে পাঠিয়ে দিবে।

আপনি চাইলে *121*1500*3# ডায়াল করে যেকোন সময় পিন কোডটি পরিবর্তন করে নিতে পারবেন। এজন্য কোডটি ডায়াল করার পর বর্তমান পিন নম্বরটি দিয়ে send ক্লিক করুন। এর পরের ধাপে নতুন একটি পিন কোড দিয়ে send বাটনে ক্লিক করলেই আপনার পিন পরিবর্তন হয়ে যাবে।

রবি ব্যালেন্স ট্রান্সফার

যারা রবি এক সিম থেকে অন্য সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার সম্পর্কে জানতে চান তারাও আমাদের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবেন। তো চলুন, রবি থেকে রবি ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম গুলো জেনে নেওয়া যাক।

ধাপ-১ঃ প্রথমে যেই নম্বর থেকে টাকা পাঠাবেন সেই নম্বর থেকে *140*6*2# ডায়াল করুন।

ধাপ-২ঃ এ পর্যায়ে যত টাকা পাঠাতে চান সেই পরিমাণ লিখে Send বাটনে ক্লিক করুন।

ধাপ-৩ঃ এই ধাপে যেই নাম্বারে টাকা পাঠাতে চান সেই রবি নম্বরটি লিখে send বাটনে ক্লিক করুন।

কাজ শেষ, আপনার ব্যালেন্স ট্রান্সফার সম্পন্ন হয়েছে। মোবাইলে কনফার্মেশন ম্যাসেজ পাবেন।

রবি ব্যালেন্স ট্রান্সফার কোড

রবি ব্যালেন্স ট্রান্সফার কোডঃ *140*6*2#

শর্ত ও লিমিট

  • কমপক্ষে ৩০ দিন রবি সিম ব্যবহারকারীরা ব্যালেন্স ট্রান্সফার সুবিধা পাবেন। এক্ষেত্রে প্রি-পেইড ও পোস্ট পেইড উভয় গ্রাহকরাই এই সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।
  • একবারে ৫ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১০০ টাকা পর্যন্ত ট্রান্সফার করা যাবে।
  • একদিনে সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা পর্যন্ত ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবেন।
  • একমাসে সর্বোচ্চ ১০০০ টাকা পাঠাতে পারবেন।
  • প্রত্যেক ট্রান্সেকশনে প্রেরক ও প্রাপক উভয়কেই ২ টাকা+ভ্যাট চার্জ করা হবে।

বাংলালিংক ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম

ধাপ-১ঃ বাংলালিংক থেকে বাংলালিংক ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার জন্য সর্বপ্রথম *1000# ডায়াল করুন।

ধাপ-২ঃ এরপর পিন কোড পেতে 1 টাইপ করে send বাটনে ক্লিক করুন। পপ আপ নোটিফিকেশনের মাধ্যমে আপনাকে একটি পিন কোড দেওয়া হবে। এই কোডটি মানে রাখুন বা কোথাও লিখে রাখুন।

ধাপ-৩ঃ পুনরায় *1000# ডায়াল করুন। এরপর Balance Transfer অপশনের জন্য 1 লিখে send করুন।

ধাপ-৪ঃ এবার আপনার পিন কোডটি লিখে send করুন।

ধাপ-৫ঃ যেই নম্বরে টাকা পাঠাতে চান সেই বাংলালিংক নম্বরটি লিখে send বাটনে ক্লিক করুন।

ধাপ-৬ঃ এ পর্যায়ে যত টাকা পাঠাতে চান সেই পরিমাণ লিখে send করুন। 10 টাকা থেকে 100 টাকা এক সিম থেকে অন্য সিমে পাঠাতে পারবেন।

আপনার ব্যালেন্স ট্রান্সফার সম্পন্ন হয়েছে। এই পদ্ধতিতে বাংলালিংক থেকে অন্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবেন না। শুধুমাত্র বাংলালিংক টু বাংলালিংকে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবেন।

বাংলালিংক ব্যালেন্স ট্রান্সফার কোড

বাংলালিংক ব্যালেন্স ট্রান্সফার কোডঃ *1000#

শর্ত ও লিমিট

  • যে সিম থেকে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করবেন কমপক্ষে ৩০ দিন সেই বাংলালিংক সিমটি ব্যবহার করতে হবে।
  • একবার ব্যালেন্স ট্রান্সফার করলে তার পরবর্তী ৩০ মিনিটে আর কোনো ট্রান্সফার করা যাবেনা। ব্যালেন্স রিসিভের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম প্রযোজ্য হবে।
  • ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স সম্পূর্ণ পরিশোধ করা না হলে অর্থাৎ বকেয়া থাকলে সেই গ্রাহক ব্যালেন্স ট্রান্সফার সেবাটি ব্যবহার করতে পারবেন না।
  • সর্বনিম্ন ১০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১০০ টাকা পর্যন্ত একবারে পাঠানো যাবে।
  • প্রতিদিন সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা মাসে সর্বোচ্চ ১০০০ টাকা ট্রান্সফার করা যাবে।
  • ব্যালেন্স ট্রান্সফার সম্পূর্ণ ফ্রি

বাংলালিংক ব্যালেন্স ট্রান্সফার পিন ভুলে গেছি

বাংলালিংক ব্যালেন্স ট্রান্সফার পিন নম্বর ভুলে গেলে খুব সহজেই রিকভার করতে পারবেন। এর জন্য প্রথমে *1000# ডায়াল করুন। এরপর PIN Reset অপশনের জন্য 3 লিখে send করুন। পরবর্তী ধাপে আপনার রেজিস্ট্রেশন করা NID এর শেষ ৪ ডিজিট লিখে send করুন।

কনফার্মেশন ম্যাসেজের মাধ্যমে আপনাকে নতুন একটি পিন কোড দেওয়া হবে। এই পিন ব্যবহার করে আপনি পুনরায় ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবেন।

এয়ারটেল ব্যালেন্স ট্রান্সফার

এয়ারটেল সিমেও আপনি চাইলে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনাকে নিচের নিয়মটি অনুসরণ করতে হবে।

ধাপ-১ঃ প্রথমে আপনার মোবাইলের ম্যাসেজ আপশনে গিয়ে টাইপ করুন PIN এবং 1000 নম্বরে send করুন। ফিরতি sms এ আপনাকে একটি পিন কোড দেওয়া হবে।

ধাপ-২ঃ এরপর আবারো ম্যাসেজ আপশনে যেতে হবে। সেখানে টাইপ করুন BTR <space> PIN <space> Receiver number <space> Transfer amount এবং 1000 নম্বরে সেন্ড করুন। sms ফরমেট BTR 847346 016586****9 50

এয়ারটেল ব্যালেন্স ট্রান্সফার কোড

এয়ারটেল সিমে কোডের মাধ্যমে টাকা ট্রান্সফার করার কোনো উপায় নেই। এখানে এসএমএস এর মাধ্যমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে হয়।

শর্ত ও লিমিট

  • কমপক্ষে ৩০ দিন এয়ারটেল সিম ব্যবহার করতে হবে।
  • প্রি-পেইড ও পোস্টপেইড উভয় সিমেই এই সেবাটি ব্যবহার করা যাবে।
  • প্রেরক ও প্রাপককে প্রতি লেনদেনে ভ্যাটসহ ২.৫৫ টাকা চার্জ করা হবে।
  • প্রতিবারে ৫ থেকে ১০০ টাকা ট্রান্সফার করা যাবে।
  • দিনে সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা ও মাসে সর্বোচ্চ ১০০০ টাকা ট্রান্সফার করতে পারবেন।

টেলিটক ব্যালেন্স ট্রান্সফার

টেলিটক সিমে খুব সহজেই এক সিম থেকে অন্য সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবেন। এজন্য আপনাকে ডায়াল করতে হবে *124*PIN*amount*number#

  • এখানে পিন নম্বর 1234 অথবা 12345678 ব্যবহার করতে হবে।
  • amount ১০ টাকা থেকে ৫০ টাকা দিতে হবে।
  • number এর জায়গায় যেই নম্বরে টাকা পাঠাবেন সেই নম্বর দিবেন।

যেমনঃ *124*1234*50*01500000000#

সৌজন্যেঃ Solid Tech Tips

শর্ত ও লিমিট

  • সকল টেলিটক গ্রাহক এই সেবাটি পাবেন।
  • একবারে ১০ টাকা থেকে ৫০ টাকা লেনদেন করা যাবে।
  • একদিনে সর্বোচ্চ ১০ টি ট্রান্সফার করা যাবে।
  • প্রদিন সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা ও মাসে সর্বোচ্চ ১০০০ টাকা ট্রান্সফার করা যাবে।
  • সম্পূর্ণ ফ্রিতে এই সার্ভিস পাবেন।

শেষ কথা

এই আর্টিকেলে আমরা এক সিম থেকে অন্য সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম কানুন নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করলাম। অনেকেই এক অপারেটরের সিম থেকে অন্য আপারেটরের সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে চায়। কিন্তু এই সুবিধাটি এখনো বাংলাদেশে নেই। আশা উপরের লেখাটি পড়ে আপনাদের উপকার হয়েছে। কোন সমস্যা পেলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানান। লেখাটি ভালো লাগলেও কমেন্ট করে জানাতে পারেন।

4 thoughts on “এক সিম থেকে অন্য সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম”

  1. মোঃ নজরুল ইসলাম

    জিপি সিম থেকে এয়ারটেল সিমে ব্যালেন্স পাঠানোর নিয়ম জানালে উপকৃত হব।

    1. দুঃক্ষিত ভাই! বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত এক অপারেটর থেকে অন্য অপারেটরে টাকা পাঠানোর কোন অপশন বা সিস্টেম নেই। তাই এই মূহুর্তে আপনি জিপি সিম থেকে এয়ারটেল সিমে টাকা পাঠাতে পারবেন না। যদি এরকম সুবিধা চালু হয়, তাহলে আমরা আমাদের পোস্টে সেই বিষয়টি যুক্ত করে দিব ইনশাআল্লাহ।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Scroll to Top