ঘাড় ব্যাথার কারণ ও মুক্তি পাওয়ার ১৪ টি টিপস

ঘাড় ব্যাথা অনেকেরই খুব বড় ধরণের সমস্যা। এর জন্য অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন। আর নিজেও কিছু কাজ করতে পারেন। চলুন, ঘাড় ব্যাথার ১০ টা কারণ এবং ঘাড়ের ব্যাথা দূর করার জন্য ১৪ টি টিপস এখনই জেনে নিন।

ঘাড় ব্যাথার কারণ ও মুক্তি পাওয়ার উপায় 
ছবিঃ প্রথম আলো
ঘাড় ব্যাথার কারণ ও মুক্তি পাওয়ার উপায়
ছবিঃ প্রথম আলো

ঘাড় ব্যাথার কারণ ও মুক্তি পাওয়ার ঘরোয়া সামাধান

ঘাড় ব্যাথার কারণ

সারাদিন বিভিন্ন কাজ-কর্ম করে মানুষ অস্থিরতা অনুভব করে বিশ্রাম নিতে চায়। কিন্তু শরীরের অন্যান্য অঙ্গ থেকে ঘাড় বেশি নাড়াচাড়া হয়। ফলে ঘাড় নড়াচড়ায় হালকা এদিক ওদিক হলেই শুরু হয় ঘাড়ে ব্যাথা। তো ঘাড় ব্যাথার কারণ বিস্তারিত জেনে নিন।

ঘাড় ব্যাথার ১০ টা কারণ

  • ১) দীর্ঘক্ষণ একই ভঙ্গিতে ঘাড় বাঁকা করে টিভি বা মোবাইল দেখা।
  • ২) লাগাতার কম্পিউটারের মনিটরের দিকে তাকিয়ে থাকলেও ঘাড়ে ব্যাথা হতে পারে।
  • ৩) কাপড় চোপড় ধোয়া কিংবা সেলাই করার কারণে অনেকক্ষণ একই ভাবে বসে থাকতে হয়। একারণেও ঘাড়ে ব্যাথা হতে পারে।
  • ৪) রান্নাবান্না করার কারণেও ঘাড় ব্যাথা হতে পারে। মোট কথা একই স্টাইলে কোন কাজ অনেক্ষন ধরে করলেই ঘাড় ব্যাথা শুরু হয় অনেকেরই।
  • ৫) বয়সের কারণেও ঘাড় ব্যাথা হতে পারে।কেননা বয়সের সাথে সাথে হাড়ও ক্ষয় হয়ে যায়।
  • ৬) উচ্চ রক্তচাপের কারণেও ঘাড় ব্যাথা হতে পারে।
  • ৭) যক্ষ্মা এবং বিভিন্ন জীবাণুর সংক্রাম ঘটার দ্বারাও ঘাড়ে ব্যাথা হয়।
  • ৮) টেনশন ও দুশ্চিন্তার কারণেও ঘাড় ব্যাথা হয়।
  • ৯) চোখের অসুবিধার কারণেও ঘাড় ব্যাথা হয়।
  • ১০) শোয়ার বেশকম হলেও ঘাড় ব্যাথা হতে পারে।

আরো পড়ুন…….

ঘাড় ব্যাথার কারণ তো জানা হলো। এবার চলুন, এর থেকে সমাধানের ঘরোয়া কিছু উপায় জেনে নেই।

ঘাড়ের ব্যাথা দূর করার জন্য ১৪ টি টিপস

  • ১) ঘাড়ে হালকা গরম সেঁক দিন, দেখবেন ব্যাথা অনেকটাই উপশম হবে।
  • ২) কাজ করার সময় ঘাড় সামনের দিকে ঝুকিয়ে রাখা থেকে বিরত থাকুন।
  • ৩) ঘাড় যদি সামনে ঝুঁকিয়ে রাখতেই হয় তাহলে সারভাইকাল কলার পরতে পারেন।
  • কেননা এটা চারপাশ থেকে গলাকে আবৃত করে তাই ঘাড়ে ব্যাথা কম লাগে।
  • ৪) শোয়ার সময় নরম ও মধ্যম ধরনের বালিশ ব্যবহার করুন। প্রয়োজনে মাথার বালিশ থেকে ছোট্ট একটা বালিশ মাথা থেকে ঘাড়ের নিচেও দিতে পারেন।
  • ৫) দীর্ঘক্ষণ টিভি দেখবেন না এবং মোবাইল চালাবেন না।
  • ৬) পড়ালেখা, কম্পিউটার মনিটরিং, গাড়ি চালানোর সময় ঘাঁড় বাকিয়ে ঝুঁকে থাকবেন না।
  • ৭) কপালে একটি হাত শক্তভাবে রাখুন, হাতটিতে মাথা দিয়ে চাপ দিন। মাথার চারদিকেই হাত রেখে এভাবে ব্যায়াম করুন। প্রতি দিকে ৫ বারের বেশি চাপ দেবেন না। দিনে ২-৩ বেলা এই ব্যায়াম করতে পারেন। ইনশাল্লাহ ঘাড় ব্যাথা ভালো হয়ে যাবে বলে আশা করি।
  • ৮) দুশ্চিন্তা বা টেনশন থেকে সম্পূর্ণ রূপে মুক্ত থাকুন।
  • ৯) দৈনিক ৭/৮ ঘন্টা ঘুম সু-নিশ্চিত করুন।
  • ১০) সেলুনে ঘাঁড় মটকানো থেকে সম্পূর্ণ ভাবে বিরত থাকুন।
  • ১১) শক্ত বিছানা ব্যবহারেও ঘাড়ের ব্যাথা কমতে পারে।
  • ১২) ওজন জাতীয় কোন কিছু মাথায় উঠাবেন না। উঠালেও সতর্ক থাকুন।
  • ১৩) কম্পিউটারে কাজ করার সময় মনিটর চোখের লেভেলে রাখবেন।
  • ১৪) অতিরিক্ত সব ধরনের পরিশ্রম থেকে বিরত থাকুন।

আমাদের সর্বশেষ আপডেট

ডাক্তারের পরামর্শ নিন

খুব বেশি সমস্যা দেখা দিলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন। কারণ, ডাক্তার এ বিষয়ে অভিজ্ঞ। তারাই মূল সমস্যা চিহ্নিত করে সঠিক ব্যবস্থা নিতে পারবেন।

যেকোন রোগে ডাক্তারের চিকিৎসা নিতে অনিহা দেখাবেন না। এতে বড় ধরণের সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে। আর্থিক সমস্যা বা সময় সংকুলান না হলে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ তে কল করে সেবা নিতে পারেন। এটি সম্পূর্ণ ফ্রী (শুধুমাত্র কল চার্জ প্রযোজ্য)।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Scroll to Top