মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন করতে হবে? কিন্তু কেন? জেনে নিন

সিমের পর এবার মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। কথাটা কি সত্য? হুম সত্য। আমিও খবরটা জানতে পেরেছি। বিটিআরসি সম্প্রতি এমন উদ্যোগ নিচ্ছে।

মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন
মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন

কেন এই মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন? সুবিধা কি?

সিমের মত মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশনেরও মূল উদ্যেশ্য অপরাধ কমইয়ে আনা। ইদানিং বাংলাদেশে সাইবার অপরাধ অনেক বেড়ে গেছে।

তাই এসব অপরাধে লাগাম দেওয়ার জন্যই এই সময়োপযোগী উদ্যোগ। এখন আপনার মোবাইল চুরি করে নিয়ে গেলেও চিন্তার কোন কারণ নেই। কেউ সেটা ব্যবহার করতে পারবে না।

যাই নামে মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন করা থাকবে শুধু তার সিমই ঐ মোবাইলে ব্যবহার করা যাবে।

অর্থাৎ যার নামে সিম রেজিস্ট্রেশন করা, তার নামে মোবাইল রেজিস্ট্রেশন করা থাকতে হবে। একজনের সিম আরেকজন ব্যবহার করতে পারবে না।

তাই আপনার ফোন চাইলেই কেউ ব্যবহার করতে পারবেনা। আপনার ফোন চুরি হয়ে গেলে আপনি চাইলেই সেটা ব্লক করে দিতে পারবেন। আর কেউ সেই মোবাইল চালাতে পারবেনা।

এইসব কিছু করা হবে আইএমইআই কোড রেজিস্ট্রেশন করার মাধ্যমে। তবে মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন করার উপকারই বেশি।

আপনার মোবাইল দিয়ে কেউ অপরাধ করতে পারবেনা। চাইলেই সেটা সম্ভব নয়।

প্রত্যক জিনিসের ভালো দিকের সাথে খারাপ দিকও আছে। মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন এর ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম নয়। চলুন জেনে নেই মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন এর কিছু অসুবিধা।

মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন এর কিছু অসুবিধা

মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন করলে আপনাকে কিছু ঝামেলা পোহাতে হবে। চাইলেই আপনি মোবাইল বিক্রি করতে পারবেন না। কারণ এক্ষেত্রে রেজিস্ট্রেশন পরিবর্তন করতে পারবেন না।

অনেকেরই নিজের নামে নিম রেজিস্ট্রেশন করা নেই। তাই তারা পড়বেন বড় ঝামেলায়। অন্যের নামে রেজিস্ট্রেশন করা সিম আপনার মোবাইলে চলবেনা।

কারণ, সিম যার মোবাইল ও তার হতে হবে।

কীভাবে মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন করবেন?

আপনি নতুন মোবাইল কিনলে খুব সহজেই রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। মোবাইলে প্রথম যে সিম ঢুকাবেন সেই সিম যার নামে রেজিস্ট্রেশন করা মোবাইলও তার নামে রেজিস্ট্রেশন হয়ে যাবে।

আর পুরাতন মোবাইলের ক্ষেত্রে এখনো কোন নিয়ম জানানো হয়নি।

মোবাইল ফোনের বর্তমান দাম জানুন এখানে

যেভাবে মোবাইল ফোনের রেজিস্ট্রেশন চ্যাক করবেন

প্রথমে *#06# ডায়াল করে আপনার মোবাইলের ১৫ ডিজিটের IMEI নম্বর বের করুন। এরপর মোবাইলের ম্যাসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করুন KYD IMEI no. আর সেন্ড করুন ১৬০০২ নম্বরে।

বিটিআরসি থেকে আপনাকে ম্যাসেজ করে বিস্তারিত জানিয়ে দেওয়া হবে।

সূত্রঃ Real tech master

Read more….

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Scroll to Top